,


সংবাদ শিরোনাম:
«» কোভিড: দেশে দৈনিক সংক্রমণের হার ৭ মাস পর ৩ শতাংশের নিচে নামল «» হামের টিকা একবার নিলে মোটামুটি সারা জীবনই ভালো কাজে দেয়।  জল বসন্তের টিকা ১০ থেকে ২০ বছরের জন্য সুরক্ষা দেয়। আর ধনুষ্টঙ্কারের টিকার কার্যকারিতা থাকে এক দশক কিংবা তারও বেশি সময়। অথচ কোভিড-১৯ টিকা দেওয়ার পর ছয় মাস না যেতেই অনেক দেশের স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের বাড়তি একটা ‘বুস্টার ডোজ’ দেওয়ার কথা ভাবতে হচ্ছে। «» গাজীপুরে কারে ট্রেনের ধাক্কা, ঢাবির সাবেক শিক্ষক নিহত «» «» দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে একদিনে আরও ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে, সংক্রমণ ধরা পড়েছে আরও ৮৪৭ জনের মধ্যে। «» ভূমি অফিসের ঘুষকাব্য: যেখানে ছাড় নেই মন্ত্রীদেরও «» ভূমি অফিসের ঘুষকাব্য: যেখানে ছাড় নেই মন্ত্রীদেরও «» «» আমার প্রানপ্রিয় সিদ্ধিরগন্জবাসী ও আমার সন্তান তুল্য নেতাকর্মীবৃন্দ মনেরেখো যাদের নিজস্ব কোন গোল নেই! তারাই অন্যের মাঠে গোল দিয়ে নিজেদেরকে বড় খেলোয়াড় ভাবে।আপনাদের পাড়াতে ও এইরূপ খেলোয়াড় আছে। জীবনের এই খেলাতে হারার জন্য প্রস্তুত থেকো কিন্তু খেলা ছাড়বার কোন প্রস্তুতি নিও না। অনেকেই নিয়েছে কিন্তু আমার বিশ্বাস আপনারা নিবেন না। তবে খেলা শেষ হবার পর, (এ খেলা সে খেলা নয়, এ খেলা সেই খেলা।) বুঝতে পারবেন কে খেলোয়াড় ছিলো। তবে কথা দিচ্ছি আমি আপনাদের পাশে ছিলাম,আছি, থাকবো ইনশাআল্লাহ এই পৃথিবীর বুকে যতদিন বেঁচে থাকবো- আলহাজ্ব মোঃ ইয়াছিন মিয়া সাধারণ সম্পাদক। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ। সিদ্ধরগন্জ থানা শাখা। «» তরুণ প্রজন্ম সোলজার

গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে- ঔষধি গাছপালা না থাকলেও ভেষজ বাগানের সাইনবোর্ড

স্টাফ রিপোর্টার : গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বাস্তবায়নাধীন অল্টারনেটিভ মেডিকেল কেয়ার (এএমসি)ভেষজ(ঔষধি)উদ্ভিদের মাধ্যমে স্বাস্থ্যসেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেবার পরিকল্পনা নস্যাৎ করে দিয়েছেন গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা

 

গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে-
ঔষধি গাছপালা না থাকলেও ভেষজ বাগানের সাইনবোর্ড
স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের মূল ফটকের পার্শ্বে দৃশ্যমান শুধুমাত্র সাইনবোর্ড টাঙ্গিয়ে চলছে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য সেবা।
লক্ষ্য করা গেছে, ভেষজ বাগানে একটিও ঔষধি গাছ নেই। নশহর থেকে দূরে গ্রামীণ অসহায় হতদরিদ্র জনগোষ্ঠীদের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বাস্তবায়নে ভেষজ বাগান তৈরী করতে প্রকল্প গ্রহণ করে। সেমতে প্রতিটিা উপজেলায় ভেষজ বাগান করতে অর্থ বরাদ্দ ও বাগান পরিচর্যা করার জন্য মালি নিয়োগ দেয়া হয়। অথচ গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডাঃ মাহবুবুর রহমান অর্থ চুক্তিতে ভেষজ বাগানের মালিকে দিয়ে অন্য কাজ করিয়ে নিচ্ছেন। বিশ্বস্তসূত্রে জানা গেছে, ভেষজ বাগানের জন্য লক্ষ লক্ষ টাকা বরাদ্দ হলেও শুধুমাত্র কাগজে-কলমে খরচ দেখিয়ে পুরো টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে।

গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অফিস সূত্রে জানা গেছে, এই স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভেষজ বাগান রয়েছে ও বাগান রক্ষণাবেক্ষণ ও পরিচর্যা করার জন্য অর্থ বরাদ্দ রয়েছে। এখানে মালি থাকলেও তাকে পাওয়া যায়না।
ভেষজ বাগান নেই অথচ ভেষজ বাগানের সাইনবোর্ড টাঙ্গানো কেন এমন প্রশ্নের জবাবে টিএইচএ ডাঃ মাহবুবুর রহমান স্বাস্থ্যসেবা খাতে সরকারের অনেক দুর্বলতার কথা তুলে ধরে বলেন, সরকারের পলিসিতে ভুল রয়েছে। নামমাত্র ওষুধ দিয়ে আমরা হাসপাতাল চালাচ্ছি। আমাদের যে ওষুধ বরাদ্দ দেয়া হয় তা চাহিদার তুলনায় একেবারেই অপ্রতুল।
অন্যদিকে এসব যুক্তি মানতে নারাজ সচেতনমহল। তাদের দাবী প্রধান মন্ত্রীর নেয়া প্রকল্প ধামাচাপা দিতে এহেন স্বেচ্ছাচারিতা, অনিয়ম, দুর্নীতি বন্ধে অবিলম্বে বিভাগীয় তদন্ত সাপেক্ষে ভেষজ বাগানের ঔষধি গাছ লাগানো হোক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *